অর্থ-বাণিজ্য

ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যক্তির মিলবে না চাকরি

বাণিজ্যিক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে দুর্নীতি ও জালিয়াতির দায়ে বরখাস্ত কর্মকর্তারা নতুন করে কোনো ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানে চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে অযোগ্য বলে বিবেচিত হবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নতুন নীতিমালা অনুসারে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে কর্মকর্তা নিয়োগের ক্ষেত্রে তাদের ডাটাবেজের তথ্য যাচাই করে নিতে হবে। এজন্য বাংলাদেশ ব্যাংক দুর্নীতি, জালিয়াতি ও নৈতিক স্খলনের দায়ে কর্মকর্তাদের একটি ডাটাবেজ তৈরি করছে।

এ বিষয়ে ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, বিগত কয়েক বছরে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে দুর্নীতির দায়ে চাকরিচ্যুত ব্যক্তিরা অন্য ব্যাংকে চাকরি করেন। ব্যাংকগুলোর কর্মকর্তাদের মধ্যে সততা ও নৈতিকতার মান বাড়াতে এবং এ সকল কর্মকর্তাদের যোগদান ঠেকাতেই নতুন নীতিমালা করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর বাস্তবায়ন হলে অনেকটাই ইতিবাচক ফল পাওয়া যাবে।

তিনি আরও বলেন, শুধু দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের ডাটাবেজ করলেই হবে না। তাদের শাস্তির বিষয়টিও নিশ্চিত করতে হবে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে। প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনায় আর্থিক খাতে কৌশলপত্র বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ২০১৫ সাল থেকে বাংলাদেশ ব্যাংক কাজ শুরু করেছে। নিজ উদ্যোগে কর্পোরেট মেমোরি ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (সিএমএমএস) নামে একটি সফটওয়্যার তৈরি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এতে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে দুর্নীতি, জালিয়াতি বা নৈতিক স্খলনের দায়ে চাকরিচ্যুতদের তালিকাসহ অর্থ আত্মসাৎ, দুর্নীতি, জালিয়াতি ও নৈতিক স্খলনের ধরন, বরখাস্ত কর্মকর্তার নাম, পিতার নাম, মাতার নাম, জন্ম তারিখ, জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর, পাসপোর্ট নম্বর, স্থায়ী ঠিকানা, চূড়ান্তভাবে বরখাস্তের কারণ, তারিখসহ বিভিন্ন তথ্য সংরক্ষিত হবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী বাণিজ্যিক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে এসব তথ্য সিএমএমএস সফটওয়্যারে সরবরাহ করা হবে।

ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে বরখাস্তকৃত কর্মকর্তাদের বরখাস্ত করার ৩ দিনের মধ্যে এ সংক্রান্ত সবধরনের কাগজপত্র এবং কর্তৃপক্ষ কর্তৃক শাস্তি মওকুফ বা শিথিল করলে বাংলাদেশ ব্যাংককে অবহিত করতে হবে। প্রতিষ্ঠানসমূহের শৃঙ্খলা বিভাগকে বিভিন্ন শাখা ও বিভাগ থেকে এ ধরনের তথ্য সংগ্রহের জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এর ফলে সকল দুর্নীতির দায়ে বরখাস্ত ব্যক্তিদের একটি পৃথক ডাটাবেজ তৈরি হবে।

এই সম্পর্কিত আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close