খেলাধুলা

বাংলাদেশকে ১৪৫ রানের লক্ষ্য দিল জিম্বাবুয়ে

রায়ান ব্রুল ও টিনোটেন্ডা মুতোম্বজি এ দুইজনের ৮১ রানের অপরাজিত পার্টনারশিপের উপর ভর করে ত্রিদেশীয় সিরিজের ১ম ম্যাচে বাংলাদেশের সামনে ১৪৫ রানের লক্ষ্য দাঁড় করিয়ে দিয়েছে জিম্বাবুয়ে। নির্ধারিত ১৮ ওভারে ৫ উইকেটে ১৪৪ রান সংগ্রহ করে মাসাকাদজা বাহিনী।

এর আগে শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৭টা ৪৫ মিনিটে টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন টাইগার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ম্যাচটি শুরু হয়েছে রাত ৮টায়। নির্ধারিত সময়ের দেড় ঘণ্টা পেরিয়ে যাওয়ায় ২ ওভার কমে ম্যাচ ১৮ ওভারে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো করতে পারেনি জিম্বাবুয়ে। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অভিষেক হওয়া বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামকে ডেকে আনেন সাকিব। আর বল হাতে নিয়ে প্রথম বলেই উইকেট তুলে নেন তাইজুল। তাতেই একটা রেকর্ড গড়লেন তিনি। টি-টোয়েন্টির ইতিহাসে অভিষেক ম্যাচে নিজের প্রথম বলেই উইকেট পাওয়া ১৫তম বোলার তাইজুল, আর বাংলাদেশের হয়ে প্রথম।

জিম্বাবুয়ের মারমুখী ব্যাটসম্যান ব্রেন্ডন টেলর তুলে মারতে চেয়েছিলেন এই স্পিনারকে। বল ভেসে যায় বাতাসে। টেলরের স্লগ সুইপটি ঠিক মতো ব্যাটে না লাগায় সেটি থার্ড ম্যানে দাঁড়ানো মাহমুদউল্লাহর হাতে চলে যায়। টেলর করেন ৫ বলে ৬।

তাইজুল ইসলামের পর জিম্বাবুয়ের শিবিরে আঘাত হানেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। ইনিংসের ৭ম ওভারে ৪র্থ বলে মোসাদ্দেক হোসেনের হাতে ধরা পড়েন ক্রেইগ এরভিন। আউট হবার আগে তিনি করেন ১৪ বলে ১১ রান।

এরপর অভিজ্ঞ হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে সাজঘরের পথ দেখান মোহাম্মদ সাইফউদ্দীন। ২৬ বলে ৫ চার আর ১ ছক্কায় ৩৪ রানে পৌঁছে যাওয়া জিম্বাবুইয়ান অধিনায়ক হয়েছেন মিড অফে দাঁড়ানো সাব্বির রহমানের দুর্দান্ত এক ক্যাচ।

জিম্বাবুয়ের এই উইকেট শিকারের খেলায় পরের ওভারে যোগ দেন মোসাদ্দেক হোসেনও। নবম ওভারে হাত ঘুরাতে এসে প্রথম বলেই শন উইলিয়ামসকে ফিরতি ক্যাচ বানান এই অফস্পিনার। তিনি করেন ২ রান। পরের ওভারে দুর্দান্ত এক থ্রোতে তিমিসেন মারুমাকে (১) রানআউট করেন সাকিব। তার থ্রো থেকে দ্রুতই বেল ফেলে দেন বোলার মোস্তাফিজ।

তবে ষষ্ঠ উইকেটে মুতুমবদজি আর রায়ান বার্ল ইনিংস মেরামতের দায়িত্ব নেন। এই জুটিতে সবচেয়ে মারমুখী ছিলেন বার্ল। ১৬তম ওভারে সাকিবকে রীতিমতো কাঁদিয়ে ছাড়েন এই ব্যাটসম্যান। ওই এক ওভারেই তিনি তুলে নেন ৩০ রান। ২৮ বলে করেন ফিফটি। শেষ পর্যন্ত এই জুটি থেকে ৫১ বলে আসে ৭৭ রান। বার্ল ৩২ বলে ৫৭ আর মুতুমবদজি ২৫ বলে অপরাজিত থাকেন ২১ রানে।

বাংলাদেশের পক্ষে তাইজুল ইসলাম, মোহাম্মদ সাইফউদ্দীন, মোস্তাফিজুর রহমান ও মোসাদ্দেক হোসেন ১টি করে উইকেট নেন।

বাংলাদেশ একাদশ

লিটন দাস, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, আফিফ হোসেন, তাইজুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান।

জিম্বাবুয়ে একাদশ

ব্রেন্ডন টেলর, হ্যামিল্টন মাসাকাদজা (অধিনায়ক), ক্রেইগ এরভিন, শন উইলিয়ামস, টাইমাইসেন মারুমা, রায়ান ব্রুল, টিনোটেন্ডা মুতোম্বজি, নেভিল মাদজিভা, কাইল জার্ভিস, টোনি মুনোয়ঙ্কা, টেন্ডাই চাতারা।

এই সম্পর্কিত আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close